আমিনুলের হাতে তিনটি সেলাই!

0

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষেক ম্যাচে বোলিংয়ের সময় হাতে আঘাতে পান আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। সেই চোট দুঃস্বপ্ন হয়ে এসেছে তার জন্য। ত্রিদেশীয় সিরিজের বাকি দুই ম্যাচে তরুণ লেগস্পিনারের খেলা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

এলেন, দেখলেন- জয় করলেন। আমিনুলের ক্ষেত্রে ঢের প্রযোজ্য প্রবাদবাক্যটি। বল হাতে দারুণভাবে অভিষেক টি-টোয়েন্টি রাঙিয়েছেন তিনি। ৪ ওভারে মাত্র ১৮ রান খরচায় ২ উইকেট শিকারে দলের জয়ে রাখেন অসামান্য অবদান।
ফলে লেগস্পিনার নিয়ে দীর্ঘদিনের হাহাকারের পরিসমাপ্তির আশা জাগে বাংলাদেশে। কিন্তু ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচেই পাওয়া চোট এখন দুশ্চিন্তারও কারণ- না জানি কি হয়!

জিম্বাবুয়েকে ৩৯ রানে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে খেলতে নামার আগেই আমিনুলের বাঁহাত ব্যান্ডেজে মোড়ানো ছিল। হালকা আঘাত নিয়েই অভিষেক রঙিন করেন তিনি। এ পথেই আঘাত পান তরুণ লেগস্পিনার।
জাদুকরী গুগলিতে হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে নিজের দ্বিতীয় শিকার ধরেন আমিনুল। এর আগে তার ব্যাটের জোরালো শট ফলো থ্রুতে থামাতে গিয়ে চোট পান তিনি।

ম্যাচশেষেই ক্লিনিকে যান আমিনুল, হন চিকিৎসকের শরণাপন্ন। লেগেছে তিনটা সেলাই। তবে নিজের ইনজুরি নিয়ে খুব চিন্তিত নন তিনি। বৃহস্পতিবার টিম হোটেলে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় ছিলেন সাবলীল।

উদীয়মান তরুণ লেগস্পিনার বলেন, বাঁহাতে একটু ব্যথা পেয়েছি। মাসাকাদজা একটা বল সোজা জোরে মেরেছিল। সেটা আটকাতে গিয়ে লেগেছে। এখন ভালো লাগছে। ব্যথা কমেছে। এ নিয়ে ফিজিওর সঙ্গে কথা বলব। উনি যা বলবেন তাই করব।
পরের ম্যাচে খেলা প্রসঙ্গে আমিনুল বলেন, এটা নির্ভর করছে টিম ম্যানেজমেন্টের ওপর। তারা যেভাবে বলবে সেভাবেই করব। এ মুহূর্তে হাতের অবস্থা ভালোই মনে হচ্ছে।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.