শিক্ষা ক্ষেত্রে প্রযুক্তি ব্যবহার

0

শিক্ষা ক্ষেত্রে তথ্য ও প্রযুক্তি ব্যবহার করলে মানুষের চিন্তা ও জ্ঞানের মিথস্ক্রিয়া ঘটবে । আধুনিক প্রযুক্তির ছোঁয়ায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশের আমূল পরিবর্তন ঘটবে , তথা তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর হবে ।

প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে থাকবে ডিজিটাল লাইব্রেরি যেখানে সমস্ত বই থাকবে পিডিএফ ফরম্যাটে । শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের প্রতিটি বেঞের সাথে লাগানাে থাকবে ইন্টারনেট সংযােগসহ কম্পিউটার , ফলে শিক্ষার্থীদের বইপুস্তক আনতে হবে না ।

শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে কম্পিউটার চালু করেই পড়াশােনা শুরু করবে এবং এর মাধ্যমে পৃথিবীর সকল দেশের শিক্ষার্থীরা কী শিখছে , তা ইচ্ছা করলেই দেখতে পারবে । তারা । | চাইলেই যেকোনাে দেশের যেকোনাে সিলেবাসের পরীক্ষা দিয়ে

সার্টিফিকেট অর্জন করতে পারবে । অর্থাৎ শিক্ষা কোনাে দেশের ভৌগােলিক সীমারেখায় আবদ্ধ থাকবে না । এছাড়াও একজন শিক্ষক প্রযুক্তির কল্যাণে একই সময়ে লাখ লাখ শিক্ষার্থীকে পড়াতে সক্ষম হবেন । প্রতিটি শিক্ষকের থাকবে ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট । এই সাইটে তারা তাদের প্রতিদিনের লেকচারগুলাে আপলােড করবেন ।
কোনাে কারণে যদি কোনাে শিক্ষার্থী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে ব্যর্থ হয় তবে সে । এখান থেকে ডাউনলােড করে সেই বিষয়টি শিখে নিতে পারবে । শিক্ষার্থীদের বইয়ের বােঝা কাঁধে নিয়ে স্কুলে যেতে হবে না । কারণ বইগুলাে হবে ডিজিটাল ।

মােবাইলের ছােট একটি মেমােরি কার্ডের মধ্যে তাদের সারাজীবনের পাঠ্যবইগুলাে পকেটে নিয়ে ঘুরতে পারবে ।
শিক্ষার্থীরা শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই শিখবে না , শিখবে কম্পিউটারে , ইন্টারনেট , টেলিভিশন , মােবাইল , পত্রিকা ইত্যাদি যেকোনাে উৎস থেকে । শেখার জন্য তার স্কুল , কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়া । বাধ্যতামূলক হবে না ।
জ্ঞান আরােহণের জন্য বর্তমানে ইন্টারনেটে অজস্র ওয়েবসাইট রয়েছে যেখান থেকে ইচ্ছামতাে শেখার সুযােগ রয়েছে ।

অর্থাৎ শিক্ষক্ষেত্রের সর্বক্ষেত্রে তথ্য ও প্রযুক্তির ব্যবহার শিক্ষার মানকে আরও বাড়িয়ে দেবে ।
বর্তমান যুগ হলো ডিজিটাল যুগ এখন মানুষ ঘরে বসে বসে পড়ালেখা করতে পারে যেকোনো কিছু করতে পারে এখন আর আগের মত নেই তিন এখন অনেক সহজ হয়ে গেছে ইচ্ছা যা ইচ্ছে তাই করতে পারছে মানুষ তথ্য প্রযুক্তির কারণে শিক্ষার ক্ষেত্র মানুষ অনেক কিছু করতে পারছে তথ্য প্রযুক্তির জন্য

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.