নেইমারকে সেমিফাইনালে উঠে গেলো রেড ডেভিলসরা

0
Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

গত ১৫ ম্যাচে অপরাজিত ব্রাজিল দল মাঠে নেমেছিল। সেই রেকর্ড আর অক্ষত রাখতে দিলো না বেলজিয়াম। পাঁচবারের বিশ্ব সেরা দলটিকে ২-১ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠে গেলো রেড ডেভিলসরা।

১৯৯৪ সাল থেকে এই নিয়ে একটানা সাতবার কোয়ার্টার ফাইনালে খেলতে নামে দক্ষিণ আমেরিকার দেশটি। অন্যদিকে বেলজিয়াম এই নিয়ে পরপর দুটি বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলছে। ২০১৪ সালে আর্জেন্টিনার কাছে ১-০ গোলে হেরে ইউরোপের দেশটিকে বিদায় নিতে হয়।

কাজান এরিনা স্টেডিয়ামে শেষ আটের লড়াইয়ে বেলজিয়ামের বিরুদ্ধে দারুণ লড়াই করেও বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হলো তিতের শিষ্যদের। নেইমার, কুতিনহোরা চেষ্টা করলেও গোল করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত হেরেই সেলেকাওদের রাশিয়াকে বিদায় জানাতে হচ্ছে।

গ্যালারি আজ ভরিয়ে ফেলেছিলেন ব্রাজিল সমর্থকেরা। বেলজিয়াম ভালো দল হলেও জেতার ব্যাপারে সবাই বেশ আত্মবিশ্বাসী ছিলেন। শুরু থেকেই আক্রমণে ঝড় তুলেছিলেন জেসুস পলিনহোরা। শুরুতেই যেনো গোল পেয়ে যাবে ব্রাজিল এমনটাই মনে হচ্ছিল।
ম্যাচের ১৩ মিনিটের মাথায় ছন্দপতন। কর্নার পায় বেলজিয়াম। নির্বিষ কর্নারে মাথা ছুঁইয় বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে ফের্নান্দিনহোর কাঁধে লেগে বল ঢুকে যায় ব্রাজিলের জালে। আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় বেলজিয়ানরা।

তারপরেও সাম্বা শিবিরের আক্রমণে কমতি ছিল না। একদিক থেকে উইলিয়ান, মার্সেলো ও মাঝখান থেকে নেইমার, কুতিনহোরা বারবার আক্রমণে উঠে আসছিলেন। তবে যেভাবে জাপান ম্যাচে প্রতি আক্রমণে ঝড় তুলেছিল, সেই রণকৌশল নিয়ে ব্রাজিলের বিরুদ্ধেও সফল বেলজিয়ান কোচ রবার্তো মার্তিনেস।
আর এই প্রতি আক্রমণ থেকেই রোমেলু লুকাকুর বাড়ানো বল থেকে ৩১ মিনিটে দুরন্ত গোল করে দলকে এগিয়ে দেন কেভিন ডি ব্রুইনে।

প্রথমার্ধে ৩১ মিনিটের মধ্যে দুই গোল খাওয়ার পরে ফিরে আসা সহজ ছিল না। দ্বিতীয়ার্ধে একের পর এক গোলের সুযোগ তৈরি করেও ব্রাজিল গোলের মুখ খুলতে পারেনি।

নেইমার, পলিনহোদের সব প্রচেষ্টা বেলজিয়ামের গোলকিপার কোর্তোইসের কাছে এসে খেই হারিয়ে ফেলছিল। সাড়ে ছয়ফুটের লম্বা এই গোলকিপার একাই বেশ কয়েকটি নিশ্চিত গোল বাঁচিয়ে দিয়েছেন এদিন। যার ফলে মাথায় কুটেও ব্রাজিল গোল পায়নি।
শেষদিকে ৭৫ মিনিটের মাথায় রেনাতো অগাস্তোকে নামান তিতে। পরের মিনিটে মাথায় হেড করে ব্রাজিলকে গোল করে ব্যবধান কমিয়ে আনেন তিনি। তারপরেও বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করে ফেলেছিল। তবে গোল আসেনি।

৯৩ মিনিটের মাথায় নেইমারের শট আটকে নিশ্চিত গোল বাঁচান সেই কোর্তোইস। ফলে খালি হাতেই কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ব্রাজিলকে বিদায় নিতে হল।
এই ম্যাচে জয়ের পর এইডেন হ্যাজার্ডের দলের সেমিফাইনালে প্রতিপক্ষ ফ্রান্স। আগামী মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় সেন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামে ম্যাচটি হবে।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.