সেমিফাইনালের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ফ্রান্স ও বেলজিয়াম

0
Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

রাশিয়া বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের প্রথম ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে ফ্রান্স ও বেলজিয়াম। বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় ম্যাচটি শুরু হবে। আজকের ম্যাচটি হতে যাচ্ছে ইউরোপের দুই জায়ান্ট দেশের লড়াই। দুই দলই তারকাসমৃদ্ধ। বেলজিয়ামে যেমন আছে লুকাকু, হ্যাজার্ড ও কোম্পানিদের মতো তারকা, তেমনি ফ্রান্সেও আছে গ্রিজম্যান, এমবাপে, পগবার মতো সুপারস্টার। এই দুই দেশের লড়াইটি যেন আজ ক্ল্যাসিক লড়াই হয়ে উপস্থিত হতে যাচ্ছে।

দিদিয়ের দেশমের ফ্রান্স সেমিফাইনালে রবার্ট মার্টিনেজের বেলজিয়ামের মুখোমুখি হচ্ছে ছয়বার বিশ্বকাপের শেষ চার থেকে তৃতীয়বারের মতো ফাইনালে জায়গা করে নেয়ার লক্ষ্য। ১৯৯৮ ও ২০০৬ বিশ্বকাপের ফাইনালে তারা খেলেছিল। নিজ দেশে ১৯৯৮ বিশ্বকাপে ব্রাজিলকে ৩-০ গোলে হারিয়ে দিয়ে তারা শিরোপা উৎসব করেছিল। কিন্তু ২০০৬ জার্মানি বিশ্বকাপে ইতালির কাছে পেনাল্টি শুট আউটে পরাজিত হয়ে রানার্সআপের দুঃখ নিয়েই তাদের অভিযান শেষ হয়েছিল।

অন্য দিকে বেলজিয়াম তাদের বিশ্বকাপ ফুটবলের ইতিহাসে মাত্র দ্বিতীয়বারের মতো শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছে। ১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে দিয়েগো ম্যারাডোনার আর্জেন্টিনার কাছে ২-০ গোলে পরাজিত হয়ে শেষ চারে প্রথমবারের মতোই তাদের অভিযান শেষ হয়েছিল।

যখন গ্রুপ পর্বে ফ্রান্স ও অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয়ে একটি পেনাল্টি এবং আত্মঘাতী গোলের মাধ্যমে সকারুজদের বিপক্ষে জয়ী হয় তখন কেউ ভাবতে পারেনি দিদিয়ের দেশ্যামের দল শেষ চারে জায়গা করে নেবে। গ্রুপ পর্বের পরবর্তী দুটো ম্যাচেও এমবাপের ফ্রান্স তেমন একটা উত্তেজনা বা নিজেদের আশাবাদী হওয়ার লক্ষণ দেখাতে পারেনি। লেস ব্লুজরা যেন অপেক্ষায় ছিল। তাদের সেরাটা বের হয়ে এসেছে নকআউট পর্যায়ে। মেসির আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনায় তারই টিমমেট সুয়ারেজের উরুগুয়েকে ব্যাগ গুছিয়ে দেশে পাঠিয়েছে তারা। রাউন্ড অব সিক্সটিনের সাত গোলের লড়াইয়ে লেস ব্লুসদের গোল সংখ্যা ছিল চার ও আর্জেন্টিনার তিন। মাত্র এক গোলের ব্যবধানে তারা জয়ী হলেও সেদিন তারা বিশ্বকে দেখিয়েছে অসাধারণ ফুটবল। দেখিয়েছে এমবাপে, পগবা ও গ্রিজম্যান যাদু। কোয়ার্টার ফাইনালে অস্কার তাবারেজ ও সুয়ারেজের উরুগুয়ের বিপক্ষে সুসংহত, শক্তিশালী এবং প্রাধান্য বিস্তার করা খেলা খেলেই ২-০ গোলের জয় নিয়েই শেষ চারে এসেছে দিদিয়ের দেশ্যামের ফ্রান্স।

শুধু তাই নয় নকআউট পর্বের দুটি ম্যাচেই ফ্রান্স দেখিয়েছে তাদের তীরগুলোতে বেশ বিষ রয়েছে যা রাশিয়া বিশ্বকাপ জয় করতেও তাদেরকে সাহায্য করতে পারবে। কিলিয়েন এমবাপের মতো আক্রমণভাগের দুর্দান্ত খেলোয়াড় রাশিয়া বিশ্বকাপকে দেখিয়েছে ফ্রান্স। এই তরুণ তুকীর খেলা দিন দিন বিকশিত হয়েছে আর্জেন্টিনা এবং উরুগুয়ের বিপক্ষে নিজের সেরাটা মেলে ধরেছে। প্যারিস সেন্ট জার্মেই এর মূল মঞ্চে থাকা এমবাপেকে সহায়তার জন্য আছেন গ্রিজম্যান। ম্যান ইউ এর মাঝমাঠের সেনানি পল পগবা একই ভূমিকা রাখবেন ফ্রান্সের হয়ে। দলে বেশি কোনো পরিবর্তন আনবেন না দেশ্যম। ব্লেইসি মাতুইদি আবার একাদশে আসতে পারেন। নিজেদের সর্বশেষ ছয়টি ম্যাচে ফ্রান্স চারটিতে জয়ী হয়েছে এবং দু’টি ড্র করেছে।

রাশিয়া বিশ্বকাপের সবচেয়ে বিপদজনক দল হিসেবে নিজেদের প্রমাণিত করেছে বেলজিয়াম। কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় সেটিই প্রমাণিত করেছে। নিজেদের সর্বশেষ ২৪ ম্যাচে কোনো পরাজয়ের মুখ দেখেনি মার্টিনেজের দল। এতেই তাদের শক্তি প্রমাণিত হয়। কেভিন ডি ব্রুইনা এবং এডেন হ্যাজার্ড জাদুকরী খেলা দেখাচ্ছেন রেড ডেভিলসদের হয়ে এবং আক্রমণভাগে আছে রোমেয়ু লুকাকু।

সর্বশেষ ছয় ম্যাচের সব কয়টিতেই জয়ী হয়েছে রবার্ট মার্টিনেজের বেলজিয়াম। টমাস মুনিয়ারকে তারা পাবে না কার্ড সমস্যার কারণে। বিকল্পর কোনো অভাব নেই তাদের হাতে। ক্যারিসকো, শাদলি ও জানুজায আছে তাদের। এই দুই দেশের মাঝে রাশিয়া বিশ্বকাপের লড়াইটি হবে ৭৪তম লড়াই। বেলজিয়াম ৩০টিতে এবং ফ্রান্স ২৪টিতে জয়ী হয়েছে। বাকি ম্যাচগুলো ড্র হয়েছে।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.