ডাকসু পুনর্নির্বাচনের দাবিতে আমরণ অনশনে শিক্ষার্থীরা

0
Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

অনিয়মের অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদের সদ্য সমাপ্ত নির্বাচন বাতিল করে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে আমরণ অনশন করছেন ছয় শিক্ষার্থী। যতক্ষণ না পর্যন্ত ঢাবি উপাচার্য বা দায়িত্বপ্রাপ্ত কেউ এসে তাদের আশ্বস্ত করছেন ততক্ষণ পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাবেন বলে জানান তারা।
আজ বুধবার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে তারা অনশনে আছেন। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ছয়টা থেকে প্রথমে চার প্রার্থী অনশন শুরু করেন। পরে তাদের সঙ্গে আরও দুজন শিক্ষার্থী যোগ দেন।

অনশনের সময় তাদের পাশে রাখা তিনটি প্ল্যাকার্ডে লেখা দেখতে পাওয়া যায়- ‘একটা ফেয়ার ইলেকশনের জন্য…’ ‘আমরণ অনশন…’ ও ‘শিক্ষকদের ভোট ডাকাতি এই লজ্জা কোথায় রাখি?

অনশনে বসা শিক্ষার্থীরা হলেন- ডাকসু নির্বাচনে শহীদুল্লাহ হল সংসদের সাহিত্য সম্পাদক পদের প্রার্থী শোয়েব মাহমুদ, মুহসিন হল সংসদের সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদের প্রার্থী মো. মাঈন উদ্দিন, জগন্নাথ হল সংসদের সদস্য পদের প্রার্থী অনিন্দ্য মণ্ডল এবং কেন্দ্রীয় সংসদের ছাত্র পরিবহন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী তাওহীদ তানজীম। এছাড়া আরও দুজন সাধারণ শিক্ষার্থী রাফিয়া তামান্না ও আল মাহমুদ ত্বাহা।

অনশনকারী মো. মাঈন উদ্দিন জানান, ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামানসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অনশনকারীদের কাছে এসে নির্বাচনের ভুল স্বীকার ও পুনর্নির্বাচনের দাবি মেনে না নেওয়া পর্যন্ত তারা অনশন চালিয়ে যাবেন।

অনিন্দ্য মণ্ডল বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি। আমরা নির্বাচনের জন্য পুনঃতফসিলের দাবিতে অনশন শুরু করেছি। একই সঙ্গে আমাদের দাবি- নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তাদের পদত্যাগ।’
বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আমাদের আশ্বাস না দেয়া পর্যন্ত আমাদের আমরণ অনশন চলবে বলেও জানান তিনি।

রাফিয়া তামান্না বলেন, ‘নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলেও আমি প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছি। ১১ মার্চ কী নির্বাচন হয়েছে তা আমি নিজ চোখে দেখেছি। তাই একজন সচেতন শিক্ষার্থী হিসেবে সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে অন্যকোনও উপায় না দেখে আমি অনশনে যোগ দিয়েছি।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ২৮ বছর পর গত সোমবার ডাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে সহসভাপতি (ভিপি) পদে নুরুল হক ও সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে গোলাম রাব্বানী নির্বাচিত হয়েছেন। রাত সাড়ে তিনটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও ডাকসুর সভাপতি মো. আখতারুজ্জামান এ ফল ঘোষণা করেন। ঘোষিত ফল অনুসারে, ডাকসুর ২৫ পদের মধ্যে ২৩টিতেই ছাত্রলীগের প্রার্থীরা নির্বাচিত হন। সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) পদে জয়ী হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। আর সমাজসেবা সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্রার্থী আখতার হোসেন।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.