ফণীর ক্ষতি বাজারে কোন প্রভাব ফেলবে না- কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক

0
Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

দেশে চাহিদা মেটানোর পর উদ্বৃত্ত থাকায় ৫ থেকে ১০ লাখ মেট্রিক টন বোরো চাল রপ্তানির পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। তবে এটি এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না। মঙ্গলবার সকালে সচিবালয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’এর কারণে ফসলের ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে প্রেস ব্রিফিংয়ে এই কথা জানান কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড় ফণির কারণে দেশের প্রায় ৩৫টি জেলার ২০৯ টি উপজেলায় বোরো ধান, ভূট্টা, পাট, পান ফসলে প্রায় ৬৩ হাজার ৬৩ হেক্টর জমি আংশিক আক্রান্ত হয়। আক্রান্ত ফসলি জমির মধ্যে বোরো ধান ৫৫ হাজার ৬০৯ হেক্টর, সবজি ৩ হাজার ৬৬০ হেক্টর, ভুট্টা ৬৭৭ হেক্টর, পাট ২ হাজার ৩৮২ হেক্টর, পান ৭৩৫ হেক্টর।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, সব ফসলই বাড়তি ফলন হচ্ছে। তাই ফণীর ক্ষতি বাজারে কোন প্রভাব ফেলবে না। চাল রপ্তানির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি এখনো, তবে এক্ষেত্রে খাদ্য চাহিদা নিশ্চিত করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
তিনি বলেন, বোরো ধান কাটা হয়ে গেলে ১৫-২০ দিন পর সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব এবার ৫-১০ লাখ টন চাল রপ্তানি করা যায় কি না। এই চাল রপ্তানি করলে কোনও অসুবিধা হবে না। আমরা আন্তর্জাতিক বাজারে যেতে পারবো। এতে দেশের ভাবমূর্তি উন্নত হবে।

তবে এ সময় দেশে কত পরিমাণ ধান উদ্বৃত্ত আছে তা জানাননি মন্ত্রী। সরকার এ বছর ১০ লাখ মেট্রিক টন সিদ্ধ বোরো চাল কিনছে প্রতিকেজি ৩৬ টাকায়।

এছাড়া আগামী ২৫ এপ্রিল থেকে আগস্ট পর্যন্ত সরকারিভাবে ৩৫ টাকা কেজি দরে আরও দেড় লাখ টন বোরোর আতপ চাল, ২৬ টাকা কেজিতে দেড় লাখ টন বোরো ধান এবং ২৮ টাকা কেজি দরে ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম কেনার কথা আছে।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.