আদাপানির যেসব উপকার আপনাকে অবাক করবে

0

আদা বহু গুণের জন্য পরিচিত। রান্নার মশলার উপকরণের মধ্যে অন্যতম হলো আদা। খাবার-দাবারে বিভিন্নভাবে ব্যবহার করা হয় এই আদা। তেমনিভাবে কিছু শুশ্রূষার ক্ষেত্রেও আদি যুগ থেকে ঘরোয়াভাবে আদা ব্যবহার করা হচ্ছে।

অনেকেই চায়ে আদা খান আবার সর্দি-কাশিতে লবণের সঙ্গে খালি খালি খেয়েও থাকেন। কিন্তু এই আদার সঙ্গে পানি মিলিয়ে খেলে বিভিন্ন ভাবে উপকার পাওয়া সম্ভব।

এবার জেনে নিন পানির সঙ্গে আদা খেলে কি কি উপকার আসে :

* বদহজমে কেবল আদা নয়, আদা দিয়ে ফোটানো পানি খুব উপকারে আসে। আদা-পানি খাবারকে সহজপাচ্য করে হজমশক্তি বাড়িয়ে শরীরকে সুস্থ করে তোলে। সামান্য অনিয়ম হলেও তার সঙ্গে লড়ার শক্তি বাড়িয়ে দেয়।

* জিম সেরে এসে বা শরীরচর্চা, অতিরিক্ত শ্রমের পর পেশীতে টান বা ব্যথা হলে আদা ফুটিয়ে সেই পানি ছেঁকে খাবেন। দিন কয়েক খাওয়ার পর পেশীতে ব্যথার এই প্রবণতা ধীরে ধীরে কমতে থাকবে।

* ঠান্ডা লেগে গলা ভেঙে গেলে, কাশিতে গলা খুশ খুশ করলে আদা কুচিয়ে পানিতে ফেলে দিন। উষ্ণ সেই পানি পান করুন দিনে দুই থেকে তিন বার। ঠাণ্ডাজনিত প্রদাহ কমিয়ে গলাকে আরাম দিতে অতি কার্যকর এই প্রক্রিয়া।

* শরীরের মেটাবলিজম বাড়াতে আদা-পানি যা গ্রিন টির মতোই কার্যকর।

* আদার সঙ্গে পানি, মধু ও লেবু মিশিয়ে খেলে মেদ ঝরবে দ্রুত।

* সারাদিন এনার্জি ধরে রাখতে সকালে চা না খেয়ে গরম পানিতে আদা ও মধু মিশিয়ে খান। উপকার হাতেনাতে টের পাবেন।

* আগের দিন রাতে জিরা ও আদার কুচি পানিতে মিশিয়ে রেখে দিন, পরের দিন সকালে সেই পানি ছেঁকে ফুটিয়ে খান। মেদ ঝরিয়ে শরীর ঝরঝরে করবে খুব তাড়াতাড়ি।

* রান্না করার চেয়ে কাঁচা আদার পুষ্টিগুণ বেশি৷ আদাপানির মাধ্যমে বহু রোগের জীবাণু ধ্বংস হয়৷ ক্যান্সারের মতো মারণ রোগ প্রতিরোধের ক্ষেত্রেও আদার জুড়ি নেই৷

* অস্ট্রেলিয়ায় এক গবেষণায় দেখা গেছে, আদা শরীরের রক্তজমাট দূর করতে সাহায্য করে। রক্তের জীবাণু দূর করতেও এটি ওষুধ হিসেবে কাজ করে।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.