বর্ষায় ভেজা কাপড় থেকে জীবাণু দূর করার উপায়

0

বর্ষায় আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি। তাই কাপড়-চোপড় সহজে শুকাতে চায় না। এই অবস্থায় পোশাকে হানা দিতে পারে ছত্রাক বা জীবাণু। যা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। এ থেকে বিভিন্ন রোগ আক্রমণ করতে পারে আপনাকে। বিশেষ করে নবজাতক ও স্কুলগামী শিশুদের বেলায় তো বটেই।

উপায়ান্তর না থাকায় ঘরের মধ্যেই দড়ি টাঙিয়ে শুকাতে হয় পোশাক। ভালভাবে শুকায় না কাপড়চোপড়, একটা স্যাঁতসেঁতে ভাব থেকেই যায়। যাতে ছত্রাকের মত জীবাণু দেখা দিতে পারে খুব সহজেই। সাধারণত জীবাণু, ছত্রাক ইত্যাদি থেকে কাপড়ে দুর্গন্ধ হয়।

অন্য সময় সূর্যের কড়া আলোয় জীবাণু বাসা বাঁধতে পারে না। তবে বর্ষাকালে জামা-কাপড়ে এই সমস্যা দেখা দেয়। তাই বর্ষায় পোশাক জীবাণু মুক্ত, পোশাক কাঁচা ও শুকিয়ে নেওয়ার কিছু উপায় জেনে নিন :

* বাসার মধ্যে কাপড় শুকাতে হলে ফ্যানের নীচে মেলুন জামা-কাপড়। শোওয়ার ঘর বাদ দিয়ে অন্য ঘরে শুকাতে দিন পোশাক। তবে এমন ঘরে দিন, যেখানে বাহির থেকে সহজে আলো-বাতাস আসতে পারে। বারান্দা থাকলে সেটাও হতে পারে ভাল বিকল্প।

* বর্ষায় জামা-কাপড় পরিস্কারের ক্ষেত্রে ডিটারজেন্ট মিশিয়ে কাঁচুন। এতে জীবাণু ঠেকানো সহজ হবে।

* বাইরে শুকাতে দেওয়া কাপড় হঠাৎ বৃষ্টিতে ভিজে গেলে, সেই কাপড় আরও একবার পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। তারপর শুকাতে দিন ফ্যানের নিচে। বার বার উলটে-পালটে দিন।

* কাঁচা কাপড় শুকিয়ে ভাঁজ করে তুলে রাখার সময় কাপড়ের ভাজে ভাজে কালো জিরা ছড়িয়ে রাখুন। আলমারিতে আলাদা করে দিন ন্যাপথলিন জাতীয় কীটনাশক।

* কাপড়ে হালকা স্যাঁতসেঁতে ভাব থাকলে ভাল করে ইস্ত্রি করে নিন। এতে পোশাকের স্যাতসেঁতে ভাবও যাবে আবার জীবাণুও গরমের জেরে বাসা বাঁধবে না। নবজাতকের কাপড় অবশ্যই ইস্ত্রি করে ব্যবহার করুন।

* কাঁচার আগে জামা-কাপড় পানিতে ভিজিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। এতে ময়লা যাবে দ্রুত। ভাল করে নিংড়ে শুকাতে দিলে শুকাবেও তাড়াতাড়ি।

জামা-কাপড় ভাল করে শুকাতে দিন, সময় যতই লাঘুগ। ভাল শুকনা কাপড় জীবাণুমুক্ত থাকে খুব সহজেই।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.