সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারিও থাকবে:স্বাস্থ্যমন্ত্রী

0

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, ‘আমরা মানুষের জীবন নিয়ে কাজ করি। জীবন একটাই, চলে গেলে সংশোধনের সুযোগ নেই। আমি বাংলাদেশের সব হাসপাতাল বন্ধ করার পক্ষে না। কিন্তু হাসপাতালগুলোতে যা যা দরকার, সেগুলো মেনে যদি চলে তাহলে কোনো আপত্তি নেই। অতীতে কী হয়েছে সেগুলো বলে লাভ নেই। আমার বক্তব্য খুব স্পষ্ট, হাসপাতাল থাকবে, অবশ্যই থাকবে। সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারিও থাকবে।’

আজ শনিবার সকালে রাজধানীর রেডিসন ব্লু হোটেলে বাংলাদেশ মেডিসিন সোসাইটি আয়োজিত ২৩তম আন্তর্জাতিক সায়েন্টিফিক সেমিনারের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যেখানে সেখানে তো আইসিইউ খোলা যায় না। একটা আইসিইউ খুলতে গেলে তার সাপোর্টিং ডকুমেন্টস লাগে। হার্টের রোগী রাখতে গেলে তার সঙ্গে সাপোর্টিং জিনিস লাগে। আমরা যে অভিযান চালাচ্ছি, এই অভিযান চলবে, এটি বন্ধ হবে না। মাঝামাঝে প্রয়োজন হলে আমিও যাবো। আমরা সংশোধন করে একটা সুন্দর স্বাস্থ্য ব্যবস্থা তৈরি করতে চাই, যাতে সাধারণ মানুষ ভালো চিকিৎসা পায়।’

বেইলি রোডের ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘গতকাল সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে আলাপ করছিলাম। উনি আমাকে বললেন, ‘‘দেখ সামন্ত, এই যে অনিয়মগুলো হয়, এগুলোর বিরুদ্ধে আমি বহুবার বলেছি। আমি তো দেখছি যে, মানুষের কী করুণ মৃত্যু।’’ আমার (মন্ত্রী) মনে হয়, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় দফতরগুলোকে, রাজউককে আরও সজাগ হওয়া উচিত। সামান্য একটা ভুলের জন্য ৪৫টা প্রাণ চলে গেল। এর থেকে মর্মান্তিক আর কিছু হতে পারে না। আমি মনে করি, এর বিরুদ্ধে অভিযান চলা উচিত।’

এর আগে সেমিনারে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী গতকাল বঙ্গভবনে শপথ অনুষ্ঠান শেষে আমাকে ডেকে নিয়ে বলেছেন– ‘‘চিকিৎসকদের পদোন্নতি হচ্ছে না কেন? তোমাকে দায়িত্ব দিয়েছি, পদোন্নতির ব্যবস্থা করো।’’ সুতরাং, আপনারা আমার ওপর ধৈর্য রাখেন। আমি রাতারাতি সবকিছু বদলাতে পারবো না। তবে আমি বিশ্বাস করি, আমার চিকিৎসক ভাইয়েরা যদি ভালো থাকে, সুখে থাকে, তাহলে তারা সেবা দিতে পারবেন।’

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.