উর্ধ্ধমূখী শেয়ার বাজার ছুয়েছে সাত হাজার পয়েন্ট

0

গত বৃহস্পতিবার ডিএসইএক্স ৭০০০ পয়েন্টের নতুন মাইলফলক থেকে মাত্র ১৯ পয়েন্ট দূরে থেকে ক্লোজ হয়েছিল। আজ ওই অবস্থান থেকে যাত্রা শুরু করেছিল। যদিও বৃহস্পতিবার লেনদেনের শেষ অংশে সূচকটি ৬৯৯১ পয়েন্ট পর্যন্ত উঠেছিল।

অবশেষে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৭০০০ পয়েন্টের মাইলফলক ছাড়াল।

রোববার সকাল ১০টায় লেনদেন শুরুর সঙ্গে সঙ্গে প্রি-ওপেনিং মার্কেটে বেশি মূল্যে শেয়ার কেনাবেচার সুবাদে সূচকটিতে যোগ হয়েছে ৩৮ পয়েন্ট। এর মাধ্যমে উঠে গেছে ৭০১৯ পয়েন্টে।

২০১৩ সালের জানুয়ারিতে সূচক গণনার নতুন নিয়ম প্রবর্তনসহ ডিএসইএক্স সূচক চালুর পর এই প্রথম সূচকটি ৭০০০ পয়েন্টের মাইলফলক অতিক্রম করলো।

সূচকটির বৃদ্ধিতে বেশিরভাগ শেয়ারের দরবৃদ্ধি ভূমিকা রাখছে। তবে একক কোম্পানি হিসেবে বেশি অবদান রাখছে বেক্সিমকো লিমিটেড। লেনদেনের প্রথম আধা ঘণ্টা শেষে শেয়ারটির বাজারদর আগের দিনের ১১৫.৬০ টাকা থেকে ১১৮.২০ টাকায় ওঠায় সূচকে যোগ হয়েছে অন্তত ৬ পয়েন্ট।

এছাড়া স্কয়ার ফার্মা, বেক্সিমকো ফার্মা, লাফার্জ-হোলসিম, বিট্রিশ আমেরিকান টোবাকোর দরবৃদ্ধি সূচকে যোগ করে প্রায় ১২ পয়েন্ট। একক খাত হিসেবে ব্যাংক সূচকের দরবৃদ্ধিতে বেশি অবদান রাখছে। এর পরেরই রয়েছে, ওষুধ ও রসায়ন, বিবিধ, বীমা এবং বস্ত্র খাত।

ডিএসইএক্স সূচক সর্বশেষ ৬০০০ পয়েন্টের মাইলফলক ছাড়িয়ে ওপরের দিকে উঠতে শুরু করেছিল গত ৩০ মে। সে হিসাবে মাত্র দুই মাসেই দেশের প্রধান এ মূল্য সূচকে যোগ হয়েছে হাজার পয়েন্ট।

এর আগে ৪০০০ পয়েন্ট থেকে ৫০০০ পয়েন্টে এবং ৫০০০ থেকে ৬০০০ পয়েন্টে সূচকটির উঠতে ছয় মাস করে সময় লেগেছিল।

আজকের লেনদেনের প্রথম আধা ঘণ্টা শেষে ডিএসইএক্স সূচকটি গত বৃহস্পতিবারের তুলনায় ৭১ পয়েন্ট বেড়ে ৭০৫২ পয়েন্টে অবস্থান করছিল।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.