কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিকারের ৪ উপায়

0

ছোট থেকে বড় সবারই কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে। অপরিকল্পিত ডায়েট ও অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাস এর জন্য দায়ী। তবে কিছু ক্ষেত্রে এই সমস্যা বংশগতভাবে দেখা দিতে পারে। কোষ্ঠকাঠিন্যের চিকিৎসা যথা সময় না নিলে তা কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি বহুগুণ বাড়িয়ে দেয়।

পানি কম খেলে, আঁশজাতীয় শাক-সবজি ও ফলমূল কম খেলে, কায়িক পরিশ্রম, হাঁটাচলা বা শরীরচর্চা একেবারেই না করলে এবং দুশ্চিন্তা বা অবসাদের ফলেও কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে। তাই সময় থাকতেই সতর্ক হওয়া উচিত।

প্রাথমিক পর্যায়ে আঁশজাতীয় শাক-সবজি যেমন পেঁপে, জিঙ্গা, ঢেঁড়স, ডাটা, বাঁধাকপি, শিম, পটল, কচু, বেগুন, বরবটি এবং যেকোন শাক বেশি পরিমাণে খেতে পারলে উপকার মিলবে। তবে এগুলোর পাশাপাশি কয়েকটি প্রাকৃতিক উপায়ের মাধ্যমে কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করা সম্ভব।

এবার জেনে নিন কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ের ৪টি প্রাকৃতিক উপায়-
১. প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার ১ ঘণ্টা আগে একটি খোসাসমেত আপেল খাবেন। তাতে উপকার পাবেন।

২. রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক কাপ উষ্ণ পানি খান। উষ্ণ পানি খেলে তা হজমে সহায়তা করবে এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করবে। তাই নিয়মিত রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক কাপ উষ্ণ পানি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

৩. বড় একটি এলাচ এক কাপ গরম দুধে সারা রাত ভিজিয়ে রেখে দিন। সকালে ঘুম থেকে উঠে এই এলাচটি থেঁতো করে দুধের সঙ্গেই খেয়ে ফেলুন। মারাত্মক রকমের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় সকালে আর রাতে এভাবে এলাচ-দুধ খেতে পারলে দ্রুত উপকার পাবেন।

৪. রাতের শোবার আগে এক গ্লাস উষ্ণ পানিতে এক চামচ মধু আর এক চামচ পাতি লেবুর রস মিশিয়ে প্রতিদিন খেয়ে দেখুন।

এই অভ্যাসগুলো গড়ে তুলতে পারলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় দ্রুত উপকার পাবেন।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.