খেলতে খেলতে মাঠেই মারা গেলেন ফুটবলার

0

খেলার মাঠে আবার ঘটল মৃত্যুর ঘটনা। এবার খেলতে খেলতে মাঠেই মারা গেলেন কলকাতার তিন প্রধানে দীর্ঘদিন খেলে যাওয়া ডিফেন্ডার রাধাকৃষ্ণন ধনরাজন। তিনি ধনা নামে পরিচিত ছিলেন।
রোববার রাতে কেরলের পেরিন্দালমান্নাতে স্থানীয় সেভেন-এ-সাইড ফুটবল ম্যাচে খেলতে নেমেছিলেন ধনরাজন। খেলার মাঝে বুকে ব্যথা অনুভব করেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে মাঠেই লুটিয়ে পড়েন তারকা ফুটবলার।

এফসি পেরিন্দালমান্না ও সাস্থ ত্রিসারের মধ্যকার ম্যাচের ২৭ মিনিটে ঘটে এ দুর্ঘটনা। ৩৯ বছর বয়সী সেন্ট্রাল ব্যাককে চটজলদি স্থানীয় মাওলানা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে তাকে বাঁচানো যায়নি। হাসপাতালে পৌঁছানোর পর ফুটবলারকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। দুই ভাইবোন, স্ত্রী ও তিন বছরের কন্যা রেখে গেছেন তিনি।

মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল ও মোহামেডান স্পোর্টিং ছাড়া ইউনাইটেড স্পোর্টস ও সাদার্ন সমিতির হয়েও খেলেন ধনরাজন। ক্যাপ্টেন হিসেবে মহামেডানকে ডুরান্ড কাপ ও আইএফএ শিল্ড এনে দেন তিনি।

কেলরের প্রখ্যাত কোচ চাত্তুণ্ণির সুযোগ্য শিষ্য ছিলেন ধনরাজন। তার কোচিংয়ে ভিভা কেরলে খেলার সময় ভারতীয় ফুটবল মহলের নজরে পড়েন তিনি।

পরে ২০০৮ সালে ডেনসন দেবদাসকে সঙ্গে নিয়ে কলকাতায় খেলতে আসেন ধনরাজন। নিজের সময়ের অন্যতম সেরা ডিফেন্ডার ছিলেন তিনি। নতুন শতকে কেরলে জন্ম নেয়া সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন হিসেবে বিবেচিত হতেন।

পেশাদার ফুটবল ছাড়লেও সেভেন-এ-সাইড ফুটবলে প্রায় নিয়মিত মাঠে নামতেন ধনরাজন। কোচিং করানোর ইচ্ছা থেকেই ‘ডি’ লাইসেন্সও পাস করেন তিনি। স্বাভাবিকভাবেই ধনরাজনের অকাল মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ভারতীয় ফুটবল মহলে। শোকস্তব্ধ কেরলের ফুটবল মহলও।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.