ফ্ল্যাটে মিলল অভিনেত্রী নূর মালবিকার পঁচাগলা ঝুলন্ত দেহ

0

চলতি জুনে আবারও উদ্ধার হলো আরেক তারকার মরদেহ। গত বৃহস্পতিবার মুম্বাইয়ের বন্ধ ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করা হয় অভিনেত্রী নূর মালবিকা দাসের পঁচাগলা ঝুলন্ত মরদেহ। সোমবার এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।মুম্বাই পুলিশের দাবি, আত্মহত্যা করেছেন আসামের এই বাঙালি অভিনেত্রী। ৩৭ বছর বয়সি নূর মালবিকা সম্প্রতি নজর কেড়েছিলেন ডিজনি প্লাস হটস্টারের ওয়েব সিরিজ ‘দ্য ট্রায়াল’-এ। এই সিরিজে যিশু সেনগুপ্ত, কাজলের মতো বড় বড় তারকার সঙ্গে কাজ করেছেন মালবিকা।

৩৭ বছর বয়সি মালবিকা অভিনয় জগতে আসার আগে, কাতার এয়ারওয়েজে একজন বিমানবালা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। গত ৬ জুন লোখান্ডওয়ালার ফ্ল্যাট থেকে মালবিকার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ বিষয়ে সোমবার দুপুরে মুম্বাই পুলিশ জানায়, আন্ধেরির ওশিওয়াড়া এলাকার নিজের ফ্ল্যাট থেকে মালবিকার পঁচাগলা দেহ মিলেছে। ফ্ল্যাটের সিলিং ফ্যানে ঝুলছিল অভিনেত্রীর দেহ। প্রতিবেশীরা বন্ধ বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। তালা ভেঙে অভিনেত্রীর অর্ধগলা দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ইতোমধ্যেই ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে, রিপোর্ট হাতে পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

জানা গেছে, অভিনেত্রীর ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে গুরুগ্রামের সিদ্ধার্থ হাসপাতালে এবং অভিনেত্রীর বাড়ি থেকে তার মোবাইল ফোন, ডায়েরি এবং বেশকিছু ওষুধ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আন্ধেরির ওই ফ্ল্যাটে নিজের পরিবারের সঙ্গেই থাকতেন মালবিকা। এমনটাই জানিয়েছেন অভিনেত্রীর ঘনিষ্ঠ বন্ধু অলোকনাথ পাঠক।

তবে, আশ্চর্যের বিষয় হল- সপ্তাহ খানেক আগেই মালবিকার পরিবার আসামে তাদের গ্রামের বাড়িতে ফিরে যায়। এমনকি তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও, তার মরদেহ নিতে আসেনি কেউই। অবশেষে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সহায়তায় রোববার তার মরদেহ দাহ করে মুম্বাই পুলিশ। আশ্চর্যজনকভাবে ৫ দিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের শেষ পোস্টটি করেন মালবিকা। অথচ পুলিশ উদ্ধার করে তার পচাগলা মরদেহ!

বিকিনি মডেল হিসাবে ইনস্টাগ্রামে ব্যাপক জনপ্রিয় ছিলেন মালবিকা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এই প্লাটফরমে তার ফলোয়ার সংখ্যা দেড় লক্ষাধিক।বেশকিছু হিন্দি ওয়েব সিরিজ ও সিনেমাতেও কাজ করেছেন আসামের এই লাস্যময়ী। প্রয়াত অভিনেত্রীর ঝুলিতে রয়েছে ‘সিসকিয়ান’, ‘ওয়াকম্যান’, ‘তিখি চাটনি’, ‘জাগন্য উপয়া’, ‘চার্মসুখ’, ‘দেখি উন্দেখি’, ‘ব্যাকরোড হাস্টল’-এর মতো সিনেমা।

টেলি সিনে ওয়ার্কার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যেই মালবিকার মৃত্যুর পূর্ণ তদন্তের দাবি জানানো হয়েছে। তিনি কি ডিপ্রেশনে ভুগছিলেন, নাকি এই মৃত্যুর নেপথ্যে রয়েছে অন্য কোনো কারণ- তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.