বিশ্বে একদিনেই করোনায় আক্রান্তের রেকর্ড এক লাখ ৭ হাজার, মৃত্যু ৩ লাখ ৩৪ হাজার

0

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনার শিকার হয়েছেন ৫১ লাখ ৯০ হাজার ৪৯৬ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১ লাখ ৭ হাজার ৮৫ জন। প্রাণ হারিয়েছেন নতুন করে ৪ হাজার ৯৩৪ জন। এ নিয়ে করোনায় বিশ্বের ৩ লাখ ৩৪ হাজার ১৭৩ জনের মৃত্যু হল। আর সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ২০ লাখ ৮১ হাজারের বেশি মানুষ।

আজ শুক্রবার বাংলাদেশ সময় সকাল পর্যন্ত বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী একদিনেই আক্রান্তের রেকর্ড ১ লাখ ৭ হাজার ৮৫ জন। প্রাণ হারিয়েছেন নতুন করে ৪ হাজার ৯৩৪ জন।

করোনার মরণ আঘাত হেনেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, যা এখনও অব্যাহত রয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লাখ ২১ হাজার ছুঁই ছুই। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছেন ২৮ হাজার ১৭৯ জন। প্রাণ গেছে আরও ১ হাজার ৪২০ জনের। ফলে, এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর দেশটিতে প্রাণহানি ৯৬ হাজার ৩৫৪ জনে ঠেকেছে।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্ত রাশিয়ায় করোনার শিকার ৩ লাখ সাড়ে ১৭ হাজারের বেশি। সে তুলনায় অবশ্য প্রাণহানি অনেকটা কম পুতিনের দেশে। এখন পর্যন্ত সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৯৯ জনের।

করোনার হটস্পট ব্রাজিলে সমান তালে বাড়ছে আক্রান্ত ও প্রাণহানি। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ লাখ প্রায় ১১ হাজার মানুষ করোনার শিকার হয়েছেন। এর মধ্যে গত একদিনেই আক্রান্ত সাড়ে ১৭ হাজারের বেশি মানুষ। মৃত্যু হয়েছে নতুন করে ১ হাজার ১৮৮ জনের। যাতে মোট সংখ্যা বেড়ে ২০ হাজার ছাড়িয়েছে।

নিয়ন্ত্রণে আসা স্পেনে আক্রান্ত ২ লাখ সাড়ে ৮০ হাজার ১১৭ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ২৮ হাজার ছুঁই ছুঁই।

যুক্তরাজ্যে সংক্রমণ আড়াই লাখ ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে সেখানে ৩৬ হাজারের বেশি মানুষের। যা করোনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু।

ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া ও আংশিক লকডাউনে থাকা ইতালিতে প্রায় সাড়ে ৩২ হাজার মানুষ করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন। আক্রান্ত ২ লাখ সাড়ে ২৮ হাজারের বেশি।

আক্রান্ত বেড়েছে ফ্রান্সে। ইউরোপের দেশটিতে করোনা হানা দিয়েছে ১ লাখ প্রায় ৮২ হাজার মানুষের দেহে। যেখানে মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ২১৫ জনের।

প্রাণহানি ততটা না হলেও আক্রান্ত বেড়েছে জার্মানিতেও। দেশটিতে ১ লাখ ৭৯ হাজার আক্রান্তে প্রাণ হারিয়েছেন ৮ হাজার ৩০৯ জন।

এদিকে দেড় লাখ ছাড়িয়েছে তুরস্কে আক্রান্তের সংখ্যা। আংশিক লকডাউনে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ২৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আর দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ভারতে। দেশটির সংক্রমিতের ১ লাখ ১৮ হাজারের বেশি। মৃত্যু হয়েছে এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৫৮৪ জনের।

আর বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্যানুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত করোনার শিকার ২৮ হাজার ৫১১ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ৪০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে বেঁচে ফিরেছেন ৫ হাজার ৬০২ জন।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.