ভারতে ২৪ ঘন্টায় সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড ৬ হাজার ৮৮ জন

0

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ হাজার ৮৮ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ পাওয়া গেছে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে একদিনে এতো সংখ্যক মানুষ এর আগে আক্রান্ত হননি। এতে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ১ লাখ ১৮ হাজার ৪৪৭ জনে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধিতে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, গুজরাট ও রাজধানী দিল্লি।

অপরদিকে, গত একদিনে প্রাণ গেছে ১৪৮ জনের। এই নিয়ে ভারতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৩ হাজার ৫৮৩ জনে ঠেকেছে। এর মধ্যে মহারাষ্ট্রেই মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৪৫৪ জনের। গুজরাটে ৭৭৩, মধ্যপ্রদেশে ২৭০ ও পশ্চিমবঙ্গে ২৫৯। শতাধিক মৃত্যুর তালিকায় রয়েছে দিল্লি (১৯৪), রাজস্থান (১৫১) ও উত্তরপ্রদেশ (১৩৮)।

ভারতে করোনাক্রান্তের সংখ্যায় অনেক দিন ধরেই শীর্ষে মহারাষ্ট্র। সারাদেশের মোট আক্রান্তের তিন ভাগের এক ভাগই সেখানে। গত ২৪ ঘণ্টায় দু’হাজার ৩৪৫ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন সেখানে। এতে করে সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ হাজার ৬৪২ জনে হয়েছে। এর মধ্যে মুম্বই শহরেই আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজারেরও বেশি।

আক্রান্তের নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। রাজ্যটিতে আক্রান্ত ১৩ হাজার ৯৬৭ জন। দ্বিতীয় স্থানে থাকা গুজরাটে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার ৯০৫ জন। রাজধানী দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা হয়েছে ১১ হাজার ৬৫৯ জনে।

এরপর ক্রমান্বয়ে রাজস্থান (৬ হাজার ২২৭), মধ্যপ্রদেশ (৫ হাজার ৯৮১), উত্তরপ্রদেশ (৫ হাজার ৫১৫), পশ্চিমবঙ্গ (৩ হাজার ১৯৭), অন্ধ্রপ্রদেশ (২ হাজার ৬৪৭), পঞ্জাব (২ হাজার ০২৮), বিহার (১ হাজার ৯৮২), তেলঙ্গানা (১ হাজার ৬৯৯), কর্নাটক (১ হাজার ৬০৫), জম্মু-কাশ্মীর (১ হাজার ৪৪৯) ও ওড়িশা (১ হাজার ১০৩), হরিয়ানা (১ হাজার ৩১)-র মতো রাজ্য।

দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধিতে রেকর্ডের মধ্যেই সুস্থ হয়ে ওঠার হার বৃদ্ধি প্রতিকূল পরিস্থিতিতে কিছুটা আশা জাগাচ্ছে। মোট আক্রান্তের মধ্যে এখনও অবধি ৪৮ হাজার ৫৩৪ জন বেঁচে ফিরেছেন। এর মধ্যে গত একদিনেই সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন তিন হাজার ২৩৪ জন।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.