লকডাউনের ধাক্কায় গত একবছরের মধ্যে বড় পতন শেয়ারবাজারে

0

আজ সোমবার থেকে মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ কমাতে এক সপ্তাহের লকডাউন দিয়েছে সরকার। এতে আতঙ্কিত হয়ে শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারীরা বিক্রি বাড়িয়ে দেন। ফলে অনেক কোম্পানির ক্রেতা সংকট দেখা দেয়। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়ে সূচকের ওপরে। আর লেনদেন শেষে বড় ধরনের পতন দেখা গেছে। গত এক বছরের মধ্যে গতকালই সবচেয়ে বড় পতন হলো।

এদিকে লকডাউনের কারণে ব্যাংকে লেনদেনের সময় কমিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ফলে শেয়ারবাজারের লেনদেনের সময়ও কমানো হয়েছে। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) জানিয়েছে, শেয়ারবাজারে লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। অর্থাৎ লেনদেন হবে মাত্র দুই ঘণ্টা। আর ব্যাংকের লেনদেন হবে আরো আধাঘণ্টা বেশি হবে। ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত গ্রাহকরা ব্যাংকে লেনদেন করতে পারবেন।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানেরই দাম কমেছে। দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে মাত্র সাতটি প্রতিষ্ঠান। দাম কমেছে ২৫১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের। আর ৬৬টির দাম অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৪৩ হাজার ৩৪৫ কোটি টাকা। যা আগের কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ছিল ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৬৮০ কোটি টাকা। অর্থাত্ একদিনেই ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে ১৫ হাজার ৩৩৫ কোটি টাকা। মূলধন বাড়ার অর্থ হলো, তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম সম্মিলিতভাবে ঐ পরিমাণ বেড়েছে।

বড় অঙ্কের বাজার মূলধন কমার পাশাপাশি সবকটি মূল্যসূচকের বড় পতন হয়েছে। দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক আগের দিনের তুলনায় ১৮১ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৮৮ পয়েন্টে নেমে গেছে। এর মাধ্যমে গত বছরের ৯ মার্চের পর সূচকটির সব থেকে বড় পতন হলো।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.