লালমনিরহাটে ৫ হাজার পরিবার পানি বন্দি, খবর জানেন না ডিসি

0
Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

লালমনিরহাট প্রতিনিধি : লালমনিরহাটে ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে তিস্তা ও ধরলা নদীর চর অঞ্চল গুলোতে বন্যা ও জলাবন্ধতা দেখা দিয়েছে। জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার ৬ ইউনিয়নসহ তিস্তা ও ধরলা নদীর তীরবর্তী ইউনিয়ন গুলোতে প্রায় ৫ হাজার পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়লেও এ খবর জানেন না জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবু জাফর।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা বলছেন, উজান থেকে তেমন পানি আসছে না। ভারী বর্ষনের কারণে চর অঞ্চল গুলোর বেশ কিছু পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। তিস্তা ব্যারাজ দোয়ানী পয়েন্টে পানি বিপদ সীমার ২০ সেঃ মিঃ নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড ও চর অঞ্চলের লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত দুই দিন ধরে ভারী বর্ষণের কারণে তিস্তা নদীর চর এলাকা গুলোতে লোকজন পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। চর এলাকা গুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। উজান থেকে তেমন পানি না আসলেও ভারী বর্ষণের কারণে বন্যা ও জলবন্ধতা দেখা দিয়েছে।

হাতীবান্ধা উপজেলা সির্ন্দুনা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরল আমিন জানান, ভারী বর্ষনের কারণে তার ইউনিয়নে ২ হাজার পরিবার, পাটিকাপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শফিউল আলম রোকন জানান, বৃষ্টির পানিতে তার ইউনিয়নে তিস্তার নদীর চর এলাকায় ১ হাজার ২ শত পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। এ ছাড়া ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নে ৬ শত এবং গড্ডিমারী ইউনিয়ন ৪ শত পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে বলেন জানান ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রেজ্জাকুল ইসলাম কায়েদ ও গড্ডিমারী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ডাঃ আতিয়ার রহমান।

এদিকে জেলার আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা ও সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ, রাজপুর, মোগলহাট ও কুলাঘাট ইউনিয়নের জলাবন্ধতার কারণে বেশ কিছু পরিবার পানি বন্দি হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থা এসোড’র বন্যা সহায়ন প্রকল্পের ফিল্ড অফিসার মমতাজ বেগম জানান, হাতীবান্ধা উপজেলার উওর ডাউয়াবাড়ী, দক্ষিন ডাউয়াবাড়ী, চর সির্ন্দুনা, পুব হলদিবাড়ী ও পশ্চিম হলদিবাড়ী এলাকার জন প্রতিনিধিদের মাধ্যমে তিনি জানতে পেয়েছেন ওই চর এলাকা গুলোতে ভারী বর্ষণের কারণে অধিকাংশ পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)’র দোয়ানী ডালিয়া’র নির্বাহী প্রকোশীলী রবিউল ইসলাম জানান, উজান থেকে তেমন পানি আসছে না। তবে বৃষ্টির কারণে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চর এলাকার লোকজন পানি বন্দি হয়ে পড়েছে ।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবু জাফর জানান, বৃষ্টির কারণে সদর উপজেলার খুনিয়াগাছা ইউনিয়নে কিছু পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। তবে জেলার হাতীবান্ধা উপজেলায় ৬ ইউনিয়নের চর এলাকায় লোকজন পানি বন্দি হয়েছে পড়েছে এমন খবর তার কাছে নেই।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.