শরীরের ক্যালসিয়ামের অভাব মেটায় বাদাম

0

সাধারণত বাদাম স্ন্যাকস হিসেবে খাওয়া হয়। এটি পুষ্টিগুণে ভরপুর। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, প্রোটিন, ভিটামিন ই, ফাইবার, সেলেনিয়াম, ভিটামিন সি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যামাইনো অ্যাসিড, পটাশিয়াম এবং ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড।
বাদাম খেলে হাড় শক্ত হয়। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হাড়ের ক্ষয় শুরু হয়। তাই হাড় ভালো রাখতে নিয়মিত খাদ্য তালিকায় বাদাম রাখা ভালো।

আমাদের শরীরে যে হাড় তৈরি হয় তার ঘনত্ব সবচেয়ে বেশি হয় ২০ থেকে ৩০ বছর পর্যন্ত। ৩০ থেকে ৪০ এর মধ্যে হাড়ের যেমন ক্ষয় হয়, তেমনই পূরণও হয়। ৪০ এর পর থেকে হাড়ের ক্ষয় শুরু হয়। কিন্তু নারীদের ক্ষেত্রে তা একটু আগেই হয়। অস্টিওক্লাস্ট নামে একটি কোষ হাড়ের ক্ষয় করে। নারীদের ক্ষেত্রে ইসট্রোজেন হরমোন বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর অস্টিওক্লাস্টিং বেড়ে যায়। এতে হাড় ক্ষয় হতে পারে। আর পুরুষদের ক্ষেত্রে হয় সেনাইল অস্টিওপরোসিস।

তাই ৩০ বছর বয়স পর্যন্ত হাড়ের ঘনত্ব বাড়িয়ে রাখার জন্য কিছু পরামর্শ দেন চিকিৎকরা। দুপুরে কিংবা রাতের খাবারে পর্যাপ্ত পরিমাণে মাছ, মাংস, ডিম, দুধ থাকুক বা না থাকুক, সুস্থ থাকতে খাদ্য তালিকায় বাদাম রাখতেই হবে।

আমন্ড, আখরোট, কাজু থেকে চীনা, হাড় মজবুত রাখতে সব ধরনের বাদামই সাহায্য করে। কোনও বাদামে কার্বোহাইড্রেট বেশি, কোথাও প্রোটিন। হাড় সুস্থ রাখতে কমবেশি সব বাদামই উপকারী। সূত্র: জিনিউজ

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.